Homeস্বাস্থ্যলাইফ স্টাইলমহিলাদের বয়স ৪০ পেরোলেই প্রয়োজন এই ৭টি স্বাস্থ্য পরীক্ষা, সুস্থ থাকুন

মহিলাদের বয়স ৪০ পেরোলেই প্রয়োজন এই ৭টি স্বাস্থ্য পরীক্ষা, সুস্থ থাকুন

আউটলাইন বাংলা হেল্থ ডেস্ক: বাড়ীর বিভিন্ন কাজে এতটাই ব্যস্ত যে শরীরের প্রতি নজর দেওয়ার সময় হয়ে ওঠেনা। ওদিকে বয়স ৪০ পেরিয়েছে। আপাত দৃষ্টিতে আপনি সুস্থ। কিন্তু, ৪০ বছরের পর থেকেই মহিলাদের শরীরে ছোট-বড় নানা পরিবর্তন ঘটে। কিছু দেখা বা বোঝা গেলেও, সব সময়ে আমরা তা নিয়ে খুব একটা ভাবি না। কিন্তু, সেই ছোট সমস্যা বা পরিবর্তনই পরবর্তীকালে বড় কোনও সমস্যার আকার নিতে পারে।

তাই ৪০ পেরলেই, প্রত্যেক মহিলার উচিত ৭টি পরীক্ষা অবশ্যই করানো। এমনটাই পরামর্শ দিয়েছেন দিল্লির ‘ফোর্টিস লা ফেম’ -এর স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞ মধু গোয়েল ও ‘অংকোয়েস্ট ল্যাবরেটরিজ’ -এর চিফ অপরেটিং অফিসার রবি গৌর।

১। থাইরয়েড— হঠাৎ করে ওজন বেড়ে যাওয়া, মাথার চুল পড়ে যাওয়া, একটুতেই হাপিয়ে যাওয়া, অনিয়মিত ঋতুস্রাব— এ সবের লক্ষণ হতে পারে থাইরডের সমস্যার জন্য। তাই প্রতি বছরই একবার চেক-আপ করে নেওয়া উচিত।
২। হাড়ের ঘনত্ব— বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মহিলাদের শরীরে এসট্রোজেন হরমোনের মাত্রা কমতে শুরু করে। যার জন্য হাড়ের সমস্যা দেখা দেয়। এই পরীক্ষাটি ২ বছর অন্তর করা অবশ্যই প্রয়োজন।
৩। পেলভিক টেস্ট— ভারতীয় মহিলাদের মধ্যে সব থেকে বেশি দেখা যায় সার্ভিকাল ক্যানসার। তাই এই পরীক্ষা অবশ্যই করানো উচিত।
৪। ম্যামোগ্রাম— বিশ্বজুড়ে মহিলাদের মৃত্যু সংখ্যা বাড়ছে ব্রেস্ট ক্যানসারে। তবে রোগের শুরুতেই তা ধরা পড়লে মৃত্যু আটকানো যায়। তাই ম্যামোগ্রাম অবশ্যই করানো উচিত চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে।
৫। ব্লাড সুগার— ব্লাড সুগারে এখন অল্প বয়সেও আক্রান্ত হন অনেকে। যদি তা না হয়, অবশ্যই তা পরীক্ষা করানো উচিত প্রতি বছর।
৬। লিপিড প্রোফাইল টেস্ট— ৪০ বছর পেরলে মহিলাদের শরীরে দেখা গিতে পারে হাইপারকোলেসটেরেমিয়া। তার জন্যই প্রয়োজন এই পরীক্ষা।
৭। চক্ষু পরীক্ষা— বয়সের সঙ্গে সঙ্গে চোখের সমস্যা তৈরি হয় মহিলা-পুরুষ নির্বিশেষেই।

৪০ বছর পেরোলেই এই পরীক্ষাগুলি অত্যন্ত জরুরি হয়ে পড়ে। তাই অবহেলা করবেন না। প্রয়োজনে ডাক্তারের পরামর্শ নিন। সুস্থ থাকুন ভাল থাকুন।

এই মুহূর্তে