HomeদেশViolence with animals in Karnataka: সীমা ছাড়াল নৃশংসতা, ৫০ টি বানরকে বিষ...

Violence with animals in Karnataka: সীমা ছাড়াল নৃশংসতা, ৫০ টি বানরকে বিষ খাইয়ে বস্তায় ভরে বেধড়ক মার কর্ণাটকে

Outlinebangla Digital Desk: ভয়াবহ পশু নিষ্ঠুরতার ঘটনা এর আগেও অনেকবার দেখা গেছে। প্রাণীদের প্রতি নৃশংতার আরও এক ঘটনা দেখা গেল কর্ণাটকের হাসান জেলার চৌদানাহাল্লি গ্রামে। সেই গ্রাম থেকে মিলল বস্তাবন্দি ৩৫টির বেশি বানরের মৃতদেহ। এর সাথে আরও ২০টি বানর বস্তাবন্দি ও গুরুতর আহত অবস্থায় থাকলেও তারা প্রাণে বেঁচে গিয়েছিল।

রাস্তার পাশে বস্তাগুলি পড়ে থাকতে দেখে গ্রামে পথচারীদের সন্দেহ হয়। বস্তাগুলি খুলতেই তাঁরা বিস্ময়ে হতবাক হন। গ্রামবাসীদের অনুমান, বস্তাবন্দি অবস্থাতেই ওই বানর গুলির উপর অত্যাচার করা হয়। গ্রামবাসীরা সব বানরগুলিকে বস্তা থেকে বার করে। সেইগুলির মধ্যে যে বানর গুলি গুরুতর আহত ছিল সেই ২০ টি বানরকে জল দেয় গ্রামবাসীরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান বিভাগের কর্মকর্তারা এবং পুলিশ বাহিনী। মৃত বানর গুলিকে কবর দেওয়ার ব্যবস্থা করেন এবং আহত বানর গুলিকে পশু হাসপাতালে পাঠানো হয়। এই ঘটনার পেছনে কারা যুক্ত তার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। প্রাথমিক রিপোর্টে বলা হয়েছে প্রত্যেকটি বানরকে প্রথমে বিষ দেওয়া হয়েছিল। তারপর বস্তায় ঢুকিয়ে অত্যাচার করা হয়।

প্রসঙ্গত, অতীতেও এইরকম ঘটনা ঘটেছে। ২০২০ সালে করলে এক গর্ভবতী হাতিকে আনারসের মধ্যে বাজি ঢুকিয়ে খেতে দেওয়া হয়। বাজিটি হাতির মুখে ফেটে যায়। ফলে মারা যায় অন্তঃসত্ত্বা হাতিটি। এছাড়া কলকাতা এনআরএস হাসপাতালে নার্সিং এর ২ ছাত্রী বেশ কয়েকটি কুকুরের বাচ্চাকে পিটিয়ে মেরে ফেলার জন্য তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। কিন্তু কেন বারবার এই নৃশংসতা? এইভাবে প্রাণী হত্যার ফলে জীববৈচিত্রের উপর প্রভাব পড়ছে। পরিবেশের ভারসাম্য ক্ষুণ্ন হয়। পশুরক্ষায় পিছিয়ে ভারত। তাই পশু সংরক্ষণের জন্য দরকার আরও কঠোর আইন প্রণয়ন ও বর্তমান আইনের ব্যাপক সংশোধন।

এই মুহূর্তে