বিয়ে বাড়ি বন্ধ করে বিতর্কের মুখে ত্রিপুরার জেলাশাসক, তদন্তের স্বার্থে সরে দাঁড়ালেন পদ থেকে

tripura wedding controversy district magistrate resign for neutral investigation
বিয়ে বাড়ি বন্ধ করে বিতর্কের মুখে ত্রিপুরার জেলাশাসক, তদন্তের স্বার্থে সরে দাঁড়ালেন পদ থেকে

Outlinebangla Desk: করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় সারা দেশ কাবু। ত্রিপুরার অবস্থাও বেশ উদ্বেগজনক। অতিমারি পরিস্থিতিতে সেখানে নৈশ কারফিউ চলছে। কিন্তু সেই আইন অমান্য করে বিয়ে বাড়ির পার্টি চলার অভিযোগে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন জেলাশাসক শৈলেশ কুমার যাদব। কিন্তু জেলাশাসকের অভিযান ঘিরে শুরু হয় বিতর্ক।

কয়েকদিন আগে ত্রিপুরার দুটি জায়গায় নৈশ কারফিউ অমান্য করে বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। বিয়ের অনুমোদনে বলা হয়েছিল ৫০ জনকে নিয়ে রাত ১০টার আগে বিয়ে শেষ করতে হবে। কিন্তু সেই আদেশ না মানায় ক্ষুব্ধ হন জেলাশাসক। ঘটনাস্থলে পৌঁছে গলা ধাক্কা দিয়ে বের করে দেন পুরোহিতকে। স্টেজ থেকে বর কনেকেও নামিয়ে ধমক দেন। কয়েকজনকে গ্রেফতার করার নির্দেশ দেন।এমনকি ওসিকে সাসপেন্ড করা হয়। এর পাশাপাশি এক বছরের জন্য দুটি বিয়ে বাড়ি বন্ধ করে দেওয়া হয়।

এই ভিডিও ভাইরাল হতেই জেলা শাসকের বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। তাঁর বিরুদ্ধে বাড়াবাড়ির অভিযোগ করেন অনেকেই। যদিও তিনি শেষ পর্যন্ত ক্ষমা চেয়ে বলেন, “আমার ব্যবহারে যদি কেউ আঘাত পেয়ে থাকেন, তবে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। আমি সাধারণ মানুষের সুরক্ষা ও মঙ্গলকামনা করেই ওই পদক্ষেপ করতে বাধ্য হয়েছিলাম। কাউকে আঘাত করা বা দুঃখ দেওয়ার লক্ষ্য আমার ছিল না।” তবে এই ঘটনার জন্য তাঁকে সাসপেন্ড করা হয়। এই ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।