শহীদ রাজেশ ওরাং কে শ্রদ্ধাঞ্জলি, সাইকেলে ১০০ কিমি পথ পেরিয়ে বীরভূম এলেন বর্ধমানের যুবক

Tribute to Rajesh Orang, from Burdwan to Birbhum Crossing 100 km on a bicycle

নিজস্ব সংবাদদাতা, সিউড়ীঃ  প্রায় ১০০কিমি পথ সাইকেলে অতিক্রম করে বেলগড়িয়া গ্রামে শহিদ রাজেশ ওরাংকে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাতে অবশেষে বীরভূমের বেলগড়িয়ায় এসে পৌঁছালেন পূর্ব বর্ধমানের বাসিন্দা সোমনাথ মিশ্র। গত কাল ভোর ৩টে নাগাদ বর্ধমানের বড়কাশিয়াড়া গ্রামের বাড়ি থেকে বের হন তিনি, মহঃবাজারের বেলগড়িয়া গ্রামে শহিদ রাজেশ ওরাংকে ১৫ই আগষ্ট স্বাধীনতা দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করতে। দীর্ঘ এই পথ প্রায় ১১ঘন্টা সাইকেল চালিয়ে অবশেষে পৌঁছালেন বেলগড়িয়া গ্রামে।

সোমনাথ বাবু জানান। ১৯৯৫সাল থেকে ভারতের বিভিন্ন প্রান্তে তিনি সাইকেল নিয়ে ঘুরে বেরিয়েছেন। এর পূর্বে তিনি পুরি,দীঘা,বিপ্লবী ক্ষুদিরামের বাড়ি,নেতাজীর বাড়ি,মাতঙ্গিনী হাজরার বাড়ি গিয়েও শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেছেন এই প্রথমবার কোনো শহিদ জওয়ানের বাড়ি এসে স্বাধীনতা দিবসে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করলেন তিনি। তিনি আরো জানান তার এই প্রচেষ্টা সম্পূর্ন নিজের উদ্যোগে। ভবিষ্যতেও তিনি এইরকম উদ্যোগ আরও গ্রহন করবেন। এছাড়াও এই দীর্ঘ পথ অতিক্রম করতে সরকারি ছাড়পত্র দিয়ে বিডিও,এসডিও,অ্যাডিসশান ডিএম সহ স্থানীয়পঞ্চায়েত প্রধানকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, ভারত চীন সীমান্তের গানওয়াল উপত্যকায় গত ১৫ই জুন দুই পক্ষের সংঘর্ষে শহীদ হন বীরভূমের মহম্মদ বাজার থানার বেলগড়িয়া গ্রামের রাজেশ ওরাং। তার পার্থিব দেহ ১৯ই জুন গ্রামে এসে পৌঁছায়। বীরভূম বাসী সহ গ্রামে শোকের ছায়া নেমে আসে। গ্রাম ঢোকার মুখে তার সমাধিস্থ করা হয়েছে। এই ঘটনা দেখতে দেখতে আজ দুই টি মাস কেটে গেল। শহীদ রাজেশ ওরাং এর স্মৃতি আঁকড়ে স্বপ্ন দেখছেন বোন, মা বাবা, পরিবার পরিজন।