Homeরাজ্য'অন্তরাত্মার ডাকে'ই যে তৃণমূল ছাড়ছেন সে কথা নিজের মুখেই ঘোষণা দীনেশর

‘অন্তরাত্মার ডাকে’ই যে তৃণমূল ছাড়ছেন সে কথা নিজের মুখেই ঘোষণা দীনেশর

আউটলাইন বাংলা ডিজিটাল ডেস্কঃ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে ফের ভাঙন তৃণমূলে। আজ রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তৃণমূলের বর্ষীয়ান নেতা দীনেশ ত্রিবেদী। এরপরই সাংবাদিকদের মুখমুখি হয়ে বলেন, “দলে থেকে কাজ করতে পারছিলাম না, দমবন্ধ হয়ে আসছিল।” পাশাপাশি জানিয়ে দিলেন তৃনমূল ছাড়ার কথা, এও জানান তৃনমূল ছাড়লেও রাজনীতি ছারবো না। দীনেশ ত্রিবেদীর হঠাৎ পদত্যাগ তৃণমূলের কাছে অনেকটা বিনা মেঘে বজ্রপাত।

দীনেশ ত্রিবেদীর পদত্যাগের পর অনেকেই মনে করছেন, এবার শুধু সময়ের অপেক্ষা তাঁর গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়া। ২০১৯ সালে অর্জুন সিংয়ের কাছে লোকসভা ভোটে হেরে গিয়েছিলেন দিনেশ ত্রিবেদী। সেই অর্জুন সিং-ই’ এবার বিজেপিতে আহ্বান জানালেন দিনেশ ত্রিবেদীকে। তবে শুধু অর্জুন সিং না, আহ্বান জানিয়েছে কৈলাস বিজয়বর্গীয়, দিলীপ ঘোষ সহ রাজীব বন্দোপাধ্যায়। কৈলাস বিজয়বর্গীয় এ-প্রসঙ্গে বলেন, কোনও ভালো ও দায়িত্ববান মানুষ তৃণমূলে থাকতে পারে না। তবে গেরুয়া শিবিরে যোগদান নিয়ে কোনো রকম কথা হয়নি।

দীনেশ ত্রিবেদী দল ত্যাগের কথা ঘোষণা করার পরই সৌগত রায় জানিয়েছেন, “যে কেউ দল ছাড়লেই আমাদের খুব খারাপ লাগে। তাই এবারও খারাপ লাগছে।” তাঁর পদত্যাগের পদক্ষেপ সত্যিই খুব অপ্রত্যাশিত। এছাড়াও সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্য়ায় জানিয়েছেন, মাননিয়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দিনেশ ত্রিবেদীকে শ্রদ্ধা করেন। এই কারনে ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটে হেরে যাওয়ার পরেও ওনাকে সাংসদ করেছিলেন। তবে বাংলা শাসকদলের একাংশ মনে করছেন দীনেশ ত্রিবেদীর দলত্যাগ আসন্ন বিধানসভা ভোটে কোনও প্রভাব ফেলবে না।

এই মুহূর্তে