Homeরাজ্যউত্তরাখণ্ডের হাতির সংখ্যা বাড়ল ৩০ শতাংশ

উত্তরাখণ্ডের হাতির সংখ্যা বাড়ল ৩০ শতাংশ

গননার কাজে বিশেষ ক্যামেরা ট্র্যাপিং ব্যবহার করা হয়েছিল। এছাড়াও পদচিহ্ন, ল্যাট্রিন সাইট এবং গ্রুমিং সাইটগুলির ওপর নজর দেওয়া হয়েছিল। উত্তরাখণ্ডে কুমির গুলি কার্পেট ল্যান্ডস্কেপ অঞ্চলের জলাভূমি, রাজাজি জাতীয় উদ্যান এবং আরো অন্য কিছু জায়গায় পাওয়া যায়।

আউটলাইন বাংলা ডেস্কঃ ২০১৫ সালের পর থেকে হাতির সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে ২৯.৯ শতাংশ। এখন রাজ্যে হাতির সংখ্যা ২০২৬ টি। বন্যপ্রাণী উপদেষ্টা বোর্ডের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মহেন্দ্র সিং রাওয়াত হাতির আদমশুমারি প্রকাশ করেছেন। চলতি বছর ফেব্রুয়ারিতে বারো বছরের ব্যবধান রেখে কুমির এবং ঘড়িয়ালের আদমশুমারি ও প্রকাশ করেছিলেন তিনি।

 

otters outlineএবারে রাজ্যে প্রথমবারের মতো ভোঁদর গুলিও গণনা করা হয়েছিল। রাওয়াত বলেন উত্তরাখণ্ডে ৬ থেকে ৮ জুন ৩ দিনব্যাপী গননা করা হয়েছিল। দেখা গেছে রাজ্যে মোট ২০২৬ টি হাতি রয়েছে। ২০১২ সালে এখানে ১৫৫৯ টি হাতি ছিল, যা ২০১৭ সালে হয়েছিল ১৮৩৯ টি। গণনার ক্ষেত্রে এই প্রথমবার পার্বত্য অঞ্চল গুলোতে ড্রোন ব্যবহার করা হয়েছিল। একটি বিশেষ পদ্ধতিতে জঙ্গলের উপর দিয়ে ওড়ানো হয়েছিল সেগুলি। কর্মকর্তাদের মতে এখন উত্তরাখণ্ডের ৪৫১ টি কুমির রয়েছে ৭৭ টি ঘড়িয়াল এবং ১৯৪ টি ভোঁদড় গননা করা হয়েছে। ২০২০ থেকে ২০২২ সালের মধ্যে রাজ্যজুড়ে তুষার চিতা সংখ্যা প্রকাশ করা হবে বলে জানা গেছে।

 

crocodileগননার কাজে বিশেষ ক্যামেরা ট্র্যাপিং ব্যবহার করা হয়েছিল। এছাড়াও পদচিহ্ন, ল্যাট্রিন সাইট এবং গ্রুমিং সাইটগুলির ওপর নজর দেওয়া হয়েছিল। উত্তরাখণ্ডে কুমির গুলি কার্পেট ল্যান্ডস্কেপ অঞ্চলের জলাভূমি, রাজাজি জাতীয় উদ্যান এবং আরো অন্য কিছু জায়গায় পাওয়া যায়। ২০০৮ সালে সর্বশেষ কুমির ও ঘড়িয়ালের আদমশুমারি অনুযায়ী বিভাগ কর্তৃক যে পরিসংখ্যান দিয়েছিল তাতে ১২৩ টি কুমির এবং ২১৩ টি ঘরিয়াল সেই সময় পাওয়া গিয়েছিল।

এই মুহূর্তে