Homeস্বাস্থ্যপুষ্টি গুনচাটনি ভালোবাসেন? জানুন কোন কোন চাটনি স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো

চাটনি ভালোবাসেন? জানুন কোন কোন চাটনি স্বাস্থ্যের পক্ষে ভালো

আউটলাইন বাংলা ডিজিটাল ডেস্কঃ চাটনি খেতে কে না পছন্দ করে। চাটনি কথাটি শুনলেই জিভে জল আসে স্বভাবতই। বিশেষ করে বাঙালি বাড়িতে শেষপাতে চাটনি খাবার চল রয়েছে। আবার লক্ষ্য করলে দেখে থাকবেন, অনেক বাড়িতে নানা ধরনের চাটনি বানিয়ে রাখে। চাটনি একাধিক খাবারের সাথে খাওয়া যায়। তবে বর্তমান সময়ে অনেকেই চাটনি খাওয়ার ব্যাপারে বেশ কড়াকড়ি, অর্থাৎ খাবার আগে সাতপাঁচ ভাবে। জেনে রাখা ভালো এই ধরনের চাটনি গুলিতে রয়েছে দারুণ পুষ্টিগুণ ও স্বাস্থের পক্ষে ভালো। তাই বলে একবারে অনেকটা চাটনি খাওয়া একদমই ঠিক না। আসুন একনজরে দেখে নেওয়া যাক, কোন কোন চাটনিতে কি কি গুন রয়েছে।

তেঁতুলের আচার বা চটনিঃ তেঁতুলের টক, ঝাল, মিষ্টি আচার বা চাটনি খেতে কার না ভালো লাগে। যেমন সুস্বাদ তেমনই মুখরোচক। আমারা কম বেশি অনেকেই জানি তেঁতুলে থাকে ভিটামিন বি১, বি২, বি৩ এবং বি৫। এছাড়াও তেঁতুলের মধ্যে থাকে বিভিন্ন মিনারেলস, যেমন- ম্যাগনেসিয়াম, পটাশিয়াম, আয়রন, ক্যালসিয়াম। তাই পরিমান মত পুষ্টিগুন সমৃদ্ধ তেঁতুলের আচার খান।

নারকেলের চাটনিঃ নারকেলের মধ্যে রয়েছে অনেক পুষ্টিগুন। নারকেলের মধ্যে থাকে ফাইবার, তামা, ম্যাঙ্গানিজ, লোহা, সেলেনিয়াম এবং ফসফরাস। তাই নারকেলের চাটনিতে যেমন রয়েছে পুষ্টি গুন, তেমনই স্বাস্থ্যের খুব পক্ষেও ভাল। তাই পরিমান মত খান নারকেলের চাটনি, উপকার পাবেন।

কাঁচা আমের চাটনিঃ গরমের সময় কাঁচা আমের চাটনি খেলে পাবেন পুষ্টিগুন, যা শরীরের পক্ষেও খুবই ভালো। গরমের সময় বিশেষত বাঙালি বাড়িতে টকডাল বা আমডাল খাওয়ারও চল রয়েছে। কাঁচা আমে থাকে মিনারেলস এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, এছাড়াও থাকে ভিটামিন এ, সি এবং ই। তাই গরমে স্বাস্থ্য ভালো রাখতে কাঁচা আমের আচার বা চাটনি খাওয়া বেশ উপকারি।

টোম্যাটোর চাটনিঃ আমরা অনেকেই জানি পটাশিয়াম এবং বায়োঅ্যাকটিভ উপাদান লাইপোসিন ছাড়াও এতে থেকে ভিটামিন বি, সি এবং ই। টোম্যাটোর মধ্যে থাকা লাইপোসিন মানবশরীরের কোষ গুলিকে ক্ষতিগ্রস্ত হতে দেয় না। তাই খাবারের শেষপাতে খান টোম্যাটোর চাটনি।

এই মুহূর্তে