Homeতথ্যমুলকThe beauty of orchids: অর্কিডের সৌম্য ছোঁয়ায় হারিয়ে যাক জীবনের সব বিবর্ণতা

The beauty of orchids: অর্কিডের সৌম্য ছোঁয়ায় হারিয়ে যাক জীবনের সব বিবর্ণতা

Outlinebangla Digital Desk: বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ও সৌন্দর্য ফুল গুলির মধ্যে অন্যতম ‘অর্কিড’ (The beauty of orchids)। এই ফুলের মোহময়ী আকৃতি, আকর্ষণীয় বর্ণের দ্বারা উদ্ভিদপ্রেমীদের মুগ্ধ করে আসছে বছরের পর বছর। বর্তমান সময়ে ‘অর্কিড’ অতি জনপ্রিয় ফুল। যা উদ্ভিদ জগতে প্রায় ৯০০ গণ এবং ৩০,০০০ এরও অধিক প্রজাতি রয়েছে। এই ফুলের গঠন বৈচিত্র্যে ও রুপের সৌন্দর্যতা দেখে প্রাচীন চীনা দার্শনিক কনফুসিয়াস অর্কিডকে সেরাফুল বলে আখ্যায়িত করেছিলেন।

অর্কিডের ইতিহাসঃ(The beauty of orchids)

এই ফুলগুলো আনুমানিক ২০০ মিলিয়ন বছর আগে প্রথম দেখা গিয়েছিল, তারপর বিষুব রেখা থেকে আর্কটিক সার্কেল ও হিমালয় থেকে অস্ট্রেলিয়া পর্যন্ত অর্কিড ছড়িয়ে পরে। ‘অর্কিডের’ প্রথম উল্লেখ পাওয়া যায় ‘ইনকোয়ারি ইন্‌টু প্লান্টস’ নামক গ্রন্থে, যেটি লিখেছিলেন অ্যারিস্টটলের ছাত্র থিওফ্রাস্টাস। এরপর গ্রীক উদ্ভিদবিদ ও চিকিৎসক ডিওসকোরিডস প্রথম শতাব্দীতে এই বর্ণময় গাছগুলোকে ‘অর্কিড’ হিসাবে চিহ্নিত করেন (The beauty of orchids)।

অর্কিডের বিস্ময়কর রুপ

প্রায় ২,০০০ বছর আগে গ্রীক দেশে Orchis নামে ডাকা হতো। অর্চিস (Orchis) বলতে বোঝায় অর্চিস মোরিওকে (Orchis Morio)। আসল অর্থ ‘অণ্ডকোষ’, অণ্ডকোষ বলার কারন মূলের দিকে তাকালে বোঝা যায়। এছাড়াও রোমান আমলে আনুমানিক ৪৭৬ খ্রিস্টপূর্বে অর্কিড শিকড় একটি কামোদ্দীপক ঔষধ হিসেবে খাওয়া হতো। উনিশ শতকের পর ধীরে ধীরে অর্কিড প্রাকৃতিক পরিবেশ থেকে সভ্যতায় প্রতিস্থাপন যোগ্য হয়ে ওঠে।

মনোমুগ্ধকর অর্কিডের বৈচিত্রঃ

মথ অর্কিড (Moth orchids)

এই গনের প্রজাতির অর্কিডগুলি অত্যাধিক পরিচিত এবং সহজেই এদের দেখা মিলে। এই অর্কিডগুলোকে ফ্যালেনোপ্‌সিস অর্কিড (Phalaenopsis) বলা হয়। মথ অর্কিড (Moth orchids) ব্যবসায়িকভাবে যেসকল অর্কিডের চাষ করা হয় তার মধ্যে মথ অর্কিড (Moth orchids) গণের প্রজাতিগুলোর চাহিদা, উৎপাদন অনেকটাই বেশি। এরা আর্দ্রতা পছন্দ করে। তাই আদ্র জায়গায় সঠিক পরিচর্যা করলেই সহজেই বৃদ্ধি ঘটে।

সিম্বিডিয়াম(Cymbidiums)

সিম্বিডিয়াম যার ল্যাটিন নাম boat অর্কিড। এই গণের অধীনে ৫২ টি প্রজাতি রয়েছে। এই জাতের অর্কিডগুলো শীতসহিষ্ণু এবং এরা খুব সহজে বেড়ে ওঠে। শীতের শেষ থেকে বসন্তের শুরু পর্যন্ত এই জাতীয় অর্কিডের বিভিন্ন রঙের সুন্দর সুন্দর ফুল ফোটে। এই অর্কিড ক্রান্তীয় এবং উপক্রান্তীয় এশিয়ায় ব্যাপক ভাবে বিস্তৃত।

ক্যাটলিয়া (Cattleya)

একাধিক রঙ ও রুপের বৈচিত্রের কারনে এই অর্কিডের ব্যাপক জনপ্রিয়তা রয়েছে। এই গণের অধীনে প্রায় ১১৩ টি প্রজাতি রয়েছে। গাছগুলি ২০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বড় হতে পারে এবং এরা ১৮-২০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রা পছন্দ করে। এই অর্কিডের ফুলগুলোতে (Orchids flower) ছয়টি পাপড়ি থাকে-এর মধ্যে তিনটি সরু পাপড়ির, দুইটি প্রশস্ত এবং আর একটি বিশেষ গড়নের পাপড়ি।

ডেনড্রোবিয়াম (Dendrobium)

ডেনড্রোবিয়াম একটি গ্রীক শব্দ, যার Dendron এর অর্থ গাছ আর bios অর্থ জীবন অর্থাৎ এক কথায় বলা যেতে পারে যেসকল উদ্ভিদ অন্য গাছে জন্মে থাকে। এই গণের অধীনে ১২০০ প্রজাতি রয়েছে। এই প্রজাতির উদ্ভিদ গুলি এপিফাইটিক বা পরজীবী। ডেনড্রোবিয়ামের পুস্প দন্ড ১ মিটার পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। পুষ্পদণ্ডে ফুলের সংখ্যা ১-৪ টি। এই জাতীয় অর্কিড গ্রীষ্মকালে দ্রুত বৃদ্ধি পায়। হর্টিকালচারে এই জাতীয় অর্কিডকে সংক্ষিপ্ত করে Den নামেও ডাকা হয়।

ভান্ডা (Vanda)

এই অর্কিডের নজরকারা সৌন্দর্য একাধিক রঙের রুপ দেখিয়ে ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করেছে। এই গণের অধীনে ৫০টি প্রজাতি রয়েছে। এই প্রজাতির উদ্ভিদ গুলি উচ্চ তাপমাত্রা এবং উচ্চ আর্দ্রতা পছন্দ করে। এরা রৌদ্রোছটা বেশি পছন্দ করে। এই প্রজাতি ভারত, হিমালয়, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, চীনের দক্ষিণাংশ, অস্ট্রেলিয়ার উত্তরাংশ পর্যন্ত বিস্তৃত।

অ্যাসকোসেন্ডা (Ascocenda)

এই প্রজাতি প্রচুর আদ্রতা পছন্দ করে। এটি মূলত ভান্ডা ও অ্যাসকোসেন্ট্রামের মধ্যে ক্রসের ফলাফল। এই প্রজাতির উদ্ভিদ গুলি বছরে তিন বার ফুল দেয়।

ক্যাম্ব্রিয়া (Cambria)

এই গণের অধীনে ৩০০ প্রজাতি রয়েছে। আর যাদের প্রচলিত নাম ‘ড্যান্সিং লেডি’। এই প্রজাতির উদ্ভিদ শুষ্ক পরিবেশে জন্মাতে পছন্দ করে। এরা সাধারণত শরত্কালে ফোটে। গ্রীষ্ম ছাড়া অন্য সময়ে নানা রঙের ফুল ফোটে।

অডোন্টোগ্লোসাম (Odontoglossum)

এই প্রজাতির উদ্ভিদ গুলিকে প্রজাপতি’ অর্কিড বলা হয়। এরা সবসময় কম আলো পছন্দ করে, এছাড়াও এই ফুলগুলো শীতল, তাজা বাতাস পছন্দ করে।

মিল্টোনিয়া (Miltonia)

১৮৩৭ সালে অর্কিডোলজিস্ট জন লিন্ডলে এই অর্কিডের এই গণ প্রতিষ্ঠা করেন। মিল্টোনিয়াকে প্যানসি (Pansy ) অর্কিড বলা হয়। এই অর্কিড প্যানসির মতো একটি স্বতন্ত্র মুখসহ বড় ফুল থাকে। এই গণের অর্কিডগুলো মূলত এপিফাইটিক। এই গণে রয়েছে বেশ কিছু সুগন্ধি অর্কিড।

প্যাফিওপেডিলাম (Paphiopedilum)

এই অর্কিডগুলো স্লিপার অর্কিড নামে পরিচিত। এদের ফুলের থলি-আকৃতির ঠোঁট থাকে যা বন্য পরাগায়নকারীদের আকর্ষণ করতে ব্যবহৃত হয়। USA তে এই ফুল moccasin flower নামে পরিচিত।

Read more: Underwater gardening: পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় সমুদ্রের তলদেশে বৃক্ষরোপণ

এই মুহূর্তে