বাড়ছে সংক্রমণ, আজ থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ তারাপীঠ

Tarapith temple closed from today

নিজস্ব প্রতিবেদনঃ বীরভূমঃ দেশ জুড়ে ক্রমশ লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েই চলেছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, কোনো ভাবেই করোনা সংক্রমণ রোখা যাচ্ছে না। বীরভূম জেলাতেও উদ্ধমূখি করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। গত কিছু মাস আগে করোনার জেরে টানা ৯০দিনের বেশি মন্দির বন্ধ থাকার পর সমস্ত স্বাস্থ্য বিধি মেনে এবং প্রশাসনের নির্দেশ মেনে খোলে তারাপীঠ মন্দির। কিন্তু পরবর্তীকালে রামপুরহাট ও তারাপীঠের আশেপাশে গ্রামগুলিতে যেভাবে করোনা সংক্রমণের হার বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে তারাপীঠ মন্দিরের সেবায়েতরা মন্দির বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল।
সেকারনে গত ৩০ জুলাই তারাপীঠ মন্দির চত্বরে পুনরায় জরুরী বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছিল। এবং জানানো হয়েছিল ১ আগস্ট থেকে মন্দির অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ রাখা হবে। তাই আজ থেকে তারাপীঠ মন্দিরে বন্ধ থাকবে সাধারণের জন্য মা তারার পূজো এবং গর্ভগৃহ। শুধুমাত্র মন্দিরের সেবায়েতেরা গিয়ে নিত্য পুজো করবেন। এই নির্দেশ জারি হয়েছে অনির্দিষ্টকালের জন্য।

কবে তারাপীঠের মন্দির আবার খুলবে সেই আশায় রয়েছে সমগ্র জেলাবাসী থেকে বঙ্গবাসী সকলেই। এই মন্দির বন্ধের ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে তারাপীঠ মন্দির কে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা যে সমস্ত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। এতদিন তারা তারাপীঠের মন্দিরে পুজোর জন্য যে সমস্ত সামগ্রী লাগে সেই সামগ্রী তারা বিক্রি করত। আজ থেকে তারাপীঠ মন্দির সম্পূর্ণ বন্ধ তাই বিক্রিবাট্টাও নেই সেখানে। একপ্রকার শূন্যতা বিরাজ করছে এই মন্দির চত্বরে। অন্যদিকে তারাপিঠে যে সমস্ত হোটেল ব্যবসায়ীরা ছিলেন তাদের ব্যবসা ও এখন মার খাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে । তারাপীঠ কে কেন্দ্র করে যে সমস্ত অতিথিশালা তৈরি হয়েছিল সেগুলো এখন বন্ধ পড়ে রয়েছে।

উল্লেখ্য কৌশিকি আমাবস্য তারাপীঠ মন্দিরে লক্ষ্য লক্ষ্য ভক্তের সমাগম ঘটে, যার ফলে মন্দির কে কেন্দ্র করে গড়ে ওঠা সমস্ত রকম ব্যবসায়ীরা সারাবছর অপেক্ষায় থাকেন। কারণ এই কৌশিক অমাবস্যা তাদের একটা ভালো অংশের কেনাবেচা হয়। কিন্তু এই বছর করোনা মহামারীর দাপটে দেশ তথা বিশ্ব আজ জরাজীর্ণ যার ফলে শুরু হয়েছে লকডাউন। সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য মন্দির বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্দির কমিটি। কবে আবার নতুন করে প্রাণ ফিরবে তারাপীঠে সেই নিয়ে চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে তাদের কপালে।