Homeস্বাস্থ্যশরীর স্বাস্থ্যআপনি কি শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগছেন? ঘরোয়া এই অভ্যেসে নিজেকে রাখুন সুস্থ

আপনি কি শ্বাসকষ্টের সমস্যায় ভুগছেন? ঘরোয়া এই অভ্যেসে নিজেকে রাখুন সুস্থ

আউটলাইন বাংলা হেল্থ ডেস্কঃ হঠাৎই প্রচন্ড শ্বাসকষ্ট,কিংবা হাঁটুর ব্যথায় নাজেহাল হয়ে পড়ছেন অনেকেই। অফিস অথবা বাড়ি সারাদিন বসে থেকে কাজ করাতে কোমরের অসহ্য যন্ত্রণার শিকার হচ্ছেন অনেকেই। নানা রকম চিকিৎসকের ওষুধ খেয়েও সুরাহা মিলছে না। কিন্তু আপনি কি জানেন একমাত্র যোগাসনের অভ্যাসে (healthy habits) নিমিষেই আপনার এই সমস্যা দূর করা সম্ভব। এরকমটাই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

একনজরে জেনে নিন কোন রোগের জন্য কোন যোগাসন কার্যকর-

পেট ও নিতম্বের চর্বি কমাতে: পেট ও নিতম্বের অতিরিক্ত চর্বি কমাতে অর্ধকূর্মাসন খুবই কার্যকরী। মাটিতে বজ্রাসনে বসুন। এইবার হাত দুটি সোজা করে মাথার ওপরে তুলে নমস্কারের ভঙ্গিতে জড়ো করুন। পেট ও বুক যেন ঊরুর সঙ্গে লেগে থাকে। এই অবস্থায় মনেমনে কুড়ি পর্যন্ত গুনুন। ধীরে ধীরে সোজা হয়ে বসে শবাসনে বিশ্রাম নিন।

হাঁটুর ব্যথা: হাঁটুর ব্যথা কমানোর জন্য উত্থানপদাসন করলে উপকার মিলবে। চেয়ারে বসে পা তোলা ও নামানো অর্থাৎ সিটেড লেগরাইজ বা পেলভিস ব্রিজ (চিৎ হয়ে শুয়ে হাঁটু ভাঁজ করে উপরের দিকে তোলাকে পেলভিস ব্রিজ বলা হয়) করা যেতে পারে। এতে থাইয়ের পেশি সঙ্কুচিত বা প্রসারিত হয়।

doing exercise
Image Source: Google

শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা: এই জাতিয় সমস্যার মোকাবিলায় সিদ্ধাসন খুবই কার্যকরী। মেরুদণ্ড সোজা রেখে পা গুটিয়ে বসে ধীরে ধীরে শ্বাস নিতে ও ছাড়তে হবে। এটি দেখতে অনেকটা পদ্মাসনের মতোই। সিদ্ধাসনে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি পায় সেই সঙ্গে ফুসফুসের কার্যক্ষমতাও বাড়ে।

হজমের সমস্যা: হজমের সমস্যা কমাতে পবনমুক্তাসন বা সুপ্ত বজ্রাসন করা যেতে পারে। পবনমুক্তাসনে চিৎ হয়ে শুয়ে প্রথমে ডান পা ভাঁজ করে পেটের সঙ্গে লাগাতে হবে। বাঁ পা তখন সোজা থাকবে। এর পরে একই ভাবে বাঁ পা ভাজ করে পেটে লাগতে হবে। ডান পা তখন সোজা থাকবে। গ্যাস, অম্বল, হজমের সমস্যা, কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা কমিয়ে খিদে বাড়ায়।

আরও পড়ুন- শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে পাতে রাখুন এই খাবার গুলি

কোমরের যন্ত্রণা: কোমরের যন্ত্রণা কমাতে ভুজঙ্গাসনও করা যেতে পারে। উপুড় হয়ে শুয়ে একটা পা উপরে তুলে একপদ সলভাসন বা পবনমুক্তাসন করলেও ভাল ফল পাওয়া যাবে।

ঘাড়ের যন্ত্রণা: ঘাড়ের যন্ত্রণার জন্য আইসোমেট্রিক প্রেসার isometric pressure অভ্যাস করলে ফল মিলবে। দু’হাত মাথার পিছনে নিয়ে মাথাকে হাত দিয়ে ঘাড় সোজা করে চাপ দিতে হবে। এ ভাবে মাথাকে চার দিকে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে চাপ দিতে হবে। চিৎ হয়ে শুয়ে (ভুজঙ্গাসন) থেকে চিবুকে হাত দিয়ে চাপ দিলেও ঘাড়ের উপর চাপ পড়ে।

নিয়মিত যোগাসন শুধু শরীরই ভালো রাখে না।মানসিক সমস্যাও দূর করে। শরীর ও মন সুস্থ তরতাজা রাখে। তবে অবশ্যই অতিরিক্ত যেকোনো শারীরিক ও মানসিক সমস্যায় চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।সুস্থ থাকুন। ভালো থাকুন।

এই মুহূর্তে