Homeবিবিধভারতে করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ মোদি সরকারঃ ল্যানসেট জার্নাল

ভারতে করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ মোদি সরকারঃ ল্যানসেট জার্নাল

Outlinebangla Desk: গোটা দেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ সুনামির মতো আছড়ে পড়েছে। বিশ্বের সমস্ত দেশের মধ্যে ভারতের অবস্থা সবথেকে ভয়াবহ। সারা দেশে জ্বলছে গণচিতা। করোনার প্রথম ঢেউ সামলে নিলেও দ্বিতীয় ঢেউ সামলাতে বেসামাল ভারত। ভারতের এই পরিস্থিতির জন্য বারবার উঠে এসেছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ব্যর্থতা।এর আগে আন্তর্জাতিক সংবাদপত্রে ভারতের এই অবস্থার জন্য মোদিকে দায়ী করা হয়েছে। এবার মেডিক্যাল জার্নাল ‘দ্য ল্যানসেট’ মোদিকে তীব্র কটাক্ষ করল।

ল্যানসেট জার্নালের একটি সম্পাদকীয়তে ভারতের করোনা পরিস্থিতি সম্পর্কে লিখেছে, ‘ভারতে ভয়ঙ্কর করোনা আবহে সংক্রমণ ঠেকানোর থেকে সমালোচনার টুইট মুছতে বেশি আগ্রহ ছিল মোদি সরকারের।’ এর সাথে মোদি সরকারের এই আচরণকে ‘ক্ষমাযোগ্য নয়’ বলেও উল্লেখ করা হয়েছে। সম্পাদকীয়তে আরও বলা হয়েছে, আগামী ১ আগস্ট পর্যন্ত দেশে ১০ লক্ষ মানুষ করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাবে। এটির জন্য দায়ী থাকবে মোদি সরকার। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,’দেশের হাসপাতাল গুলিতে বেড নেই। গোটা দেশের শ্মশানে গণচিতা জ্বলছে। স্বাস্থ্যকর্মীরা টানা কাজ করে ও করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে বিধ্বস্ত। ভারতের এই দুর্যোগ সত্যিই চোখে দেখা যায় না।’ প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। জমায়েত থেকে করোনা ছড়িয়ে পড়ে জানা সত্ত্বেও রাজনৈতিক ও ধর্মীয় সমাগমে কোন বাধা দেওয়া হয়নি। সেইজন্য ভারতে করোনা সংক্রমণ এত বেড়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে অস্ট্রেলিয়ার সংবাদপত্র ‘দ্য অস্ট্রেলিয়ান’ এ দাবি করা হয়, ভারতে ভাইরাসের এই বাড়বাড়ন্তের জন্য প্রধানমন্ত্রী দায়ী। এছাড়া ফরাসি সংবাদপত্র ‘লা মঁদ’-এ প্রকাশিত রিপোর্টে মোদির সমালোচনা করে বলা হয়েছে, ‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঔদ্ধত্য, পরিস্থিতির আগাম আঁচ না করতে পারা অর্থাৎ অপরিণামদর্শিতা এবং জনপ্রিয়তা অর্জনের চেষ্টা ভারতকে এই পরিস্থিতির দিকে নিয়ে গেছে।’ অন্যদিকে গত ২৪ ঘন্টায় দেশে করোনা আক্রান্ত ৪ লক্ষ ১ হাজার ৭৮ জন। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী দেশে মোট করোনা আক্রান্ত ২ কোটি ১৮ লক্ষ ৯২ হাজার ৬৭৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৪,১৮৭ জনের। মোট মৃতের সংখ্যা ২ লক্ষ ৩৮ হাজার ২৭০ জন। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ৩ লক্ষ ১৮ হাজার ৬০৯ জন।

এই মুহূর্তে