Homeজীবন শৈলীReduce stress easily: থাকুন একদম টেনশন ফ্রি, মাথায় রাখুন এই কথাগুলি

Reduce stress easily: থাকুন একদম টেনশন ফ্রি, মাথায় রাখুন এই কথাগুলি

Outlinebangla: বর্তমান সময়ে জীবনে চিন্তামুক্ত থাকা প্রায় সম্ভব বললেই চলে। বিভিন্ন রকম চিন্তা, উত্তেজনা আমাদের জীবনকে ঘিরে রয়েছে, আপনি টেনশন করবেন না ভাবলেও টেনশন আপনার পিছু ছাড়বে না (Reduce stress easily)। তবে জীবনে কিছু পরিমান টেনশন থাকা ভালো, যা জীবনে কাজ করার উৎসাহ যোগায়, বেঁচে থাকার আনন্দ উত্তেজনা আনে। কিন্তু বর্তমানে সাধারন মানুষের জীবনে টেনশন (tension) ক্রমশ অস্বাস্থ্যকর হয়ে উঠছে। অত্যধিক চিন্তা (stress) মনের শান্তি নষ্ট করে, ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়, খিদে কমিয়ে দেয়, প্রেসারের গন্ডগোল ঘটায়। অন্যদের সঙ্গে সম্পর্ক নষ্ট করে। দীর্ঘদিন মানসিক উৎকণ্ঠা থেকে হৃদরোগের (heart attack) সম্ভাবনা বেড়ে যায়। ডায়াবেটিস বেড়ে যায়, এছাড়া মানসিক টেনশন এর ফলে যৌনআকাঙ্খা কমে যায়।

টেনশন কমাবেন যেভাবে (Reduce stress easily):

টেনশন কমাতে যা করণীয় তার প্রথম হলো, কি কারনে টেনশন হচ্ছে সেটা খুঁজে বের করা, তা থেকে দূরে থাকা অথবা তাকে সহজে গ্রহণ করা। সাধারণত যে সকল কারণগুলো থেকে টেনশন হয়ে থাকে তা হল শরীরের অসুস্থতা, অর্থাভাব, সম্পর্ক থেকে এবং পরিবেশ থেকে।

'reduce stress easily' follow these tips
টেনশন কমাতে বাড়ির লোকজন দের রোগীকে সহযোগিতা করা প্রয়োজন সামান্য কারণে চেঁচামেচি এবং অশান্তি যাতে না হয় সেদিকে নজর রাখতে হবে।
কখনো বেকার বসে থাকবেন না। নিজেকে সব সময় কোন কাজে নিযুক্ত রাখতে হবে, বিভিন্ন কাজে নিয়োজিত করতে হবে। কাজ থেকে যে অর্থ আসবে এমন কোনো ব্যাপার নেই, যে কাজ আপনার ভালো লাগে সেই কাজে অন্তত সারাদিনের মধ্যে কিছুটা সময় দিতে হবে।

Read More- Depression: ডিপ্রেশন! একটা ছোট শব্দ, যা নিঃশব্দে কেড়ে নিচ্ছে বহু মানুষের প্রান

শরীর ভালো রাখার সঙ্গে সঙ্গে মন ভালো রাখতে হবে এবং মন ভালো রাখতে গেলে বই পড়া, গান শোনা ইত্যাদি অভ্যাস করতে হবে। এই জেনারেশনের অনেকেরই বই পড়ার অভ্যাস নেই কিন্তু এই অভ্যাস ফিরিয়ে আনতে হবে (Read book to reduce stress)। আস্তে আস্তে বই পড়ার অভ্যাস তৈরি করুন। সেলফ হেল্প এবং আরও বিভিন্ন ধরনের বই বাজারে রয়েছে, সেগুল দিয়েই নাহয় শুরু করুন। কিন্তু বই পড়ার কোন বিকল্প নেই।
শরীর ঠান্ডা রাখে এরকম খাবার-দাবার খেতে হবে। যেমন শসা, পেয়ারা, আমলকি। এছাড়া খাবারের তালিকায় লাউ, পটল, মুগের ডাল ইত্যাদি রাখা উচিত।
দীর্ঘদিন উচ্চরক্তচাপ থাকলে হাইপারটেনশন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে ফলে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। উচ্চ রক্তচাপে যতটা সম্ভব লবণ খাওয়া কম করতে হবে। কাঁচা লবণ একদমই খাওয়া যাবেনা।

এই মুহূর্তে