Tuesday, January 19, 2021
Home দেশের কচরা দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় বড়সড় পরিবর্তন আখেরে লাভ না ক্ষতি, দেখুন বিস্তারিত

দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় বড়সড় পরিবর্তন আখেরে লাভ না ক্ষতি, দেখুন বিস্তারিত

আউটলাইন বাংলা ডেস্কঃ দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় দীর্ঘ ৩৪ বছরের পর বড়সড় পরিবর্তন হতে চলেছে। গতকাল অর্থাৎ বুধবার কেন্দ্রীয় সরকার জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে ঘোষণা করেছেন জাতীয় শিক্ষা ব্যবস্থার নয়া নিয়মে প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থা থেকে শুরু করে উচ্চশিক্ষার নিয়মে আমূল পরিবর্তন করা হবে।

 

National Education Policy ক্যাবিনেট দ্বারা অনুমোদন পেয়েছে ২৯ শে জুলাই। এই জাতীয় শিক্ষানীতি প্রথম চালু হয়েছিল ১৯৮৬ সালে আর সংশোধিত রূপে আসে ১৯৯২ সালে। তারপর ২০১৯ এ খসড়া প্রস্তুত করা হয় যা ২০২০ বৈধতা পেলো। শুধু তাই না এদিন কেন্দ্রীয় মানব সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের নাম পরিবর্তন করে নতুন নামের সংস্করণ হয়েছে, এবং নতুন নাম হয়েছে শিক্ষা মন্ত্রক। কেন্দ্রের ঘোষিত নয়া নিয়মে শিক্ষা ব্যবস্থার নিয়ম পরিবর্তনের পাশাপাশি পরিক্ষা ব্যবস্থাতেও।

 

কি কি পরিবর্তন করা হয়েছে এক নজরে দেখে নিন-

  • কেন্দ্রীয় সরকারের নয়া পরিকল্পনা অনুযায়ী শিক্ষা ব্যবস্থায় সকলের জন্য শিক্ষার অধিকার থাকবে। তার জন্য নয়া পদ্ধতিটি হল ৫+৩+৩+৪ অর্থাৎ এবার থেকে ১৫ বছরের জন্য স্কুল স্তরের পড়াশুনা করতে হবে ছাত্র ছাত্রীদের।
  • এবার স্কুল শিক্ষার আওতায় প্রি-প্রাইমারি স্তরকেও নিয়ে আসা হচ্ছে। এবং এটিকে বলা হচ্ছে ফাউন্ডেশন কোর্স। প্রতি বছরের পরিবর্তে এবার থেকে বিশেষ পরীক্ষা নেওয়া হবে তৃতীয় শ্রেণিতে, পঞ্চম শ্রেণিতে ও অষ্টম শ্রেণিতে।
  • এছাড়াও নয়া নিয়মে বলা হয়েছে দশম শ্রেণি ও দ্বাদশ শ্রেণির আর নতুন করে বোর্ডের পরীক্ষা হবে না। এর পরিবর্তে নবম থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত এই ৪ বছরের ছাত্র ছাত্রীদের মোট ৪০টি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে।
  • এক্ষেত্রে কিছু পরিক্ষা বোর্ড নেবে ও কিছু পরিক্ষা স্কুল নেবে। এবং দশম শ্রেণির পর বাণিজ্য বিভাগ, কলা বিভাগ ও বিজ্ঞান বিভাগ থাকছে না, অর্থাৎ দশম শ্রেণির পর ছাত্র ছাত্রিরা তাদের পছন্দের বিষয় বেছে নিয়ে পড়াশুনা করতে পারবে।

 

নয়া নিয়মে বলা হয়েছে পঞ্চম শ্রেণি থেকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত মাতৃভাষায় শিক্ষার উপর জোড় দিতে হবে। তবে এবার থেকে মুখস্ত নয়, হাতেকলমে কাজ শেখার সুযোগ পাবে ছাত্র-ছাত্রীরা। এছাড়াও জানা গিয়েছে স্নাতক স্তরের কোর্স গুলি ৪ বছর পর্যন্ত হবে।

  • স্নাতক স্তরের কোর্সে প্রতি বছরের সার্টিফিকেট দেওয়া হবে ছাত্র ছাত্রীদের। এবং স্নাতক স্তরের কোর্সে দ্বিতীয় বছরের পর দেওয়া হবে ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট।
  • স্নাতক সার্টিফিকেট পাবে ছাত্র ছাত্রীরা তৃতীয় ও চতুর্থ বছরের পর। তবে নয়া শিক্ষা ব্যবস্থায় এমফিল করার সুযোগ থাকছে না।
  • শিক্ষার জন্য নতুন রেগুলেটরি বডি রাষ্ট্রীয় শিক্ষা আয়োগ বা National Education Commission গঠন করতে চলেছে যার প্রধান হবে প্রধানমন্ত্রী।
  • বিদেশের সেরা ১০০ কলেজকে এদেশে তাদের ক্যাম্পাস গড়ার অনুমোদন দেওয়া হবে।

 

১৯৮৬ সালের পর এই প্রথম শিক্ষা ব্যবস্থায় বড়সড় পরিবর্তন হতে চলেছে। শিক্ষা ব্যবস্থার পুরনো পদ্ধতি পরিবর্তন করতে কেন্দ্রীয় সরকার একটি কমিটি গঠন করে ছিলেন। ওই কমিটির নেতৃত্বে ছিলেন ইসরোর প্রাক্তন চেয়ারম্যান কে কস্তুরিরঙ্গন, ওই কমিটির সুপারিশের উপর ভিত্তি করে দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় বড়সড় পরিবর্তন হতে চলেছে। এর প্রভাব কতটা কার্যকরী হবে সামনের দিনগুলিতে তাঁর প্রতিফলন আমরা দেখতে পাবো।

Most Popular