অ্যাসিডে ধোয়া আদা খাচ্ছেন না তো? হতে পারে চরম বিপদ

arent-you-eating-ginger-washed-with-acid-extreme-danger

আউটলাইন বাংলা হেল্থ ডেস্কঃ  ফল এবং সব্জি বিক্রেতারা শাক-সব্জি টাটকা দেখানোর উদ্দেশ্যে রাসায়নিক মেশান, এ কথা নতুন নয়। এ নিয়ে বহু সতর্কতামূলক প্রচারও হয়েছে অসাধু ব্যবসায়ি দের সতর্ক করা হয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি সামনে এসেছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। এবার আদাকে টার্গেট করছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। পুরনো শুকনো আদা সস্তা দরে কিনে এনে বিষাক্ত অ্যাসিড দিয়ে তা ধোয়া হচ্ছে। অ্যাসিডের প্রভাবেই নতুনের মতোই চকচকে হয়ে উঠছে আদাগুলি। আর ক্রেতারা না জেনেই সতেজ আদা কিনে নিচ্ছেন।

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর অনুযায়ী, সম্প্রতি দিল্লির একটি পাইকারি সব্জি বাজার থেকে প্রায় ৪৫০ লিটার অ্যাসিড বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। কেন এত অ্যাসিড বেআইনি ভাবে মজুত রাখা হয়েছিল, সেই অনুসন্ধান চালাতেই বেরিয়ে এসেছে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য। জানা গেছে, আটক হওয়া অ্যাসিড আদা ধোয়ার কাজে ব্যবহার করা হতো যাতে তা আরও বেশি চকচকে হয়ে ওঠে। চকচকে আদার বাজারদরও বেশি।

এই আদা খাওয়ার ফল কিন্তু হতে পারে মারাত্মক। চিকিৎসকদের দাবি, দীর্ঘদিন ধরে অ্যাসিড ধোয়া আদা খেলে ক্যানসারের মতো মারণরোগ পর্যন্ত হতে পারে। শুধুমাত্র দিল্লি নয়, সারা দেশের বিভিন্ন জায়গাতেই এই ধরনের বিষাক্ত আদা বিক্রি শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছিল দিল্লি পুলিশ। এই অসাধু ব্যবসায়ীদের আটকাতে তৎপর প্রশাসন। তবে এই অপরাধ সংক্রান্ত আইন কড়া না হওয়ার ফলে ধরা পড়ার পরেও জামিনে ছাড়া পেয়ে যান অভিযুক্তরা। তাই সাবধানে বাজার করুন। চকচক করলে যেমন সোনা হয় না। সেরকম চকচক করলেই ভাল আদা হয়না।