HomeবিবিধCyclone Gulab: বঙ্গোপসাগরে ফুঁসছে ঘূর্ণিঝড় 'গুলাব', আছড়ে পড়বে রবিবার

Cyclone Gulab: বঙ্গোপসাগরে ফুঁসছে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’, আছড়ে পড়বে রবিবার

Outlinebangla Desk:অবিরাম বৃষ্টির মধ্যে ফের দুর্যোগ। বঙ্গোপসাগরে ফুঁসছে নিম্নচাপ। আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গেছে, নিম্নচাপ গভীর নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। রবিবার তা শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। রবিবার বিকালে প্রবল শক্তি নিয়ে ঘূর্ণিঝড় ‘গুলাব’ আছড়ে পড়তে পারে।

মৌসম ভবন জানিয়েছে, রবিবার ওড়িশা-অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে গুলাব। যার প্রভাবে উপকূলবর্তী এলাকায় ভারী বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। উপকূলে আছড়ে পড়ার সময় হাওয়ার গতিবেগ ঘণ্টায় ৮০ থেকে ৯০ কিলোমিটার পর্যন্ত হতে পারে। তবে দক্ষিণবঙ্গে কিছুটা স্বস্তি। কারণ গুলাবের প্রভাবে কলকাতা বা তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় ঝড় হবার সম্ভাবনা নেই। গুলাবের প্রভাবে রবিবার পূর্ব মেদিনীপুরে ভারী বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে এবং কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। গুলাব নামকরণ করেছে পাকিস্তান।

অন্যদিকে হাওয়া অফিস আগে থেকেই জানিয়েছে আগামী ২৬ থেকে ২৮ সেপ্টেম্বর ভারী বৃষ্টি হবে দক্ষিণবঙ্গে। কারণ ঘূর্ণিঝড়ের পিছু নিয়েছে এক ঘূর্ণাবর্ত। যার জেরেই দক্ষিণবঙ্গের প্রায় ১০ টি জেলায় বৃষ্টি হবে। ২৬ তারিখ পূর্ব মেদিনীপুরে ভারী বৃষ্টি হবে। দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলায় হালকা বৃষ্টি হবে। ২৭ তারিখ ভারী বৃষ্টিপাত হবে দুই মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায়। ২৮ তারিখ বৃষ্টির পরিমাণ বাড়তে থাকবে এবং দুই মেদিনীপুরের পাশাপাশি দুই ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি, কলকাতা, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রামে অতিভারী বৃষ্টি হবে। এর সাথে বাজ পড়ার আশঙ্কাও থাকছে।

ঘূর্ণিঝড় ও ঘূর্ণাবর্তের প্রভাবে সমুদ্র উত্তাল থাকবে। সমুদ্রের জল বাড়বে। তাই মৎস্যজীবীদের গভীর সমুদ্র যাওয়াতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই নবান্ন থেকে রেড অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে। আবহাওয়া দফতর প্রথম দুদিন ২৬ ও ২৭ সেপ্টেম্বর হলুদ ও শেষদিন ২৮ সেপ্টেম্বর কমলা সর্তকতা জারি করা করেছে। উপকূলরক্ষী বাহিনী এবং বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীকে তৈরি রাখা হয়েছে।

এই মুহূর্তে